অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা শুরু করার ১০ টি সহজ উপায়

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা আধুনিকতার এই যুগে বর্তমানে ব্যবসার চাহিদা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। আপনার যদি চিন্তা ভাবনা থাকে যে কম পরিশ্রম করে অনেক বেশি টাকা ইনকাম করবেন তাইলে আপনাকে অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসার দিকে নজর দিতে হবে। আপনদের সুবিধার্তে এই লেখনিতে অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা আইডিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হল।

স্বল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া

পাইকারি ব্যবসা করতে গেলে আপনি খুচরা ব্যবসার থেকে বেশি লাভবান হবেন এবং সুবিধা পাবেন। এ ক্ষেত্রে আপনার খুব বেশি পরিশ্রমের প্রোয়জন হবে না। শুধু মাত্র স্বল্প পরিশ্রম করে এবং সঠিন নিয়মে যদি পাইকারি ব্যবসা পরিচালনা করতে পারলে প্রতি মাসে অনেক ভালো পরিমানের টাকা আয় করতে পারবেন।

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা 

বর্তমান সময়ে ভালো মানের অল্প পুজিতে লাভজনক পাইকারি ব্যবসা গুলো হল কাগজের প্যাকেট তৈরি, মুদি মালামাল বিক্রি,স্টেশনারি পণ্য, বাচ্চাদের খেলনা এবং কসমেটিকস মালামালের ব্যবসা অন্যতম।

সাধারনত পাইকারি ব্যবসা বলতে পাইকারি ব্যবসা বক্তে উৎপাদনকারি কোন প্রতিষ্ঠান থেজে পাইকারি হিসাবে পন্য সামগ্রী ক্রয় করে এনে খুচরা বিক্রেতা দোকানে বিক্রি করা কে কে বুঝায়। অর্থাৎ যারা দ্রব্য পণ্য উৎপাদন করে তাদের কাছ থেকে অল্প দামে ক্রয় করে খুচরা দোকান এর কাছে লাভে বিক্রি করাকে বুঝায়।

পাইকারি ব্যবসায় আপনি অনেক বেশি লাগ করতে পারবেন এই ব্যবসায় আপনি অল্প সময় ইনভেস্ট করে বেশি পরিমান মালামাল ক্রয় করতে পারবেন এবং তা বিক্রয় করে ভালো আয় করতে পারবেন। অপর দিকে আপনি যদি খুচরা ব্যবসা করতে চান তাইলে আপনাকে অনেক সময় ইনভেস্ট করতে হবে সেই সাথে পরিশ্রম ও করতে হবে। 

কিন্তু এ ক্ষেত্রে পাইকারি ব্যবসা সম্পূর্ণ আলাদা। এখানে খুব অল্প সময় পরিশ্রম করে অনেক বেশি মালামাল বিক্রি করতে পারবেন। সেই সাথে অনেক বেশি টাকা ইনকম করতে পারবেন। তাই বর্তমান সময়ে যদি চিন্তা করেন অল্প সময়ে লাভ জনক ব্যবসা গুলোর মধ্যে কোনটি ভালো হবে তাইলে অবশ্যই বলতে হবে পাইকারি ব্যবসার কথা। চলুন এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমান সময়ের কিছু লাভজন পাইকারি ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

আরো জানতেঃ ১০ হাজার টাকায় ২৫ টি ব্যবসার আইডিয়া

অল্প পুজিতে পাইকারি কাগজের প্যাকেট তৈরির

ব্যবসা 

কাগজের প্যাকেট এর সাথে আমরা সবাই পরিচিত এবং অতপ্রত ভাবে জড়িত আছি। সাধারন কোন কিছু কিনতে গেলে যেমন মুদি বা সবজি বা রেস্টুরেন্টের খাবার যাই হোক না কেন সব বিক্রেতায় হাতে একটি কাগকের প্যাকেট ধরে দেয়। শুধু তাই নয় আমাদের প্রতিনের কজের ক্ষেত্রে এই সব কাগজের প্যাজকেট বিভিন্ন প্রয়োজনে ব্যবহার হয়ে থাকে।

পরিবেশের কথা যদি চিন্তা করি তাইলে কাগজের প্যাকেট ব্যবহারে আমাদের চার পাশের পরিবেশের কোন ক্ষতি হয় না। যদি পিছনে ফিয়ে ২০০০ সাল থেকে ২০১৫ সালের দিকে তাকাই তাইলে দেখতে পাব যে কাগজের প্যাকেটের চাহিদা অনেক বেশি ছিল। এর পর থেকে শুরু হয় পলিথিন এর ব্যবহার। 

কাগজের প্যাকেট ব্যবহারের ফলে আমাদের পরিবেশের ক্ষতি সাধন হয়না। ২০০০ সাল থেকে ২০১৫ সালের দিকে কাগজের প্যাকেটের চাহিদা অনেক বেশি ছিল। এরপরে আস্তে আস্তে পলিথিন প্যাকেটের চলাচল শুরু হয়।

কিন্তু আমরা যদি লক্ষকরি তাইলে দেখতে পাব যে ২০২৩ সাল থেকে মানুষ আগের থেকে অনেক বেশি সচেতন পরিবেশ নিয়ে। পরিবেশের কথা চিন্তা করে কাগজের প্যাকেটের চলন আবার শুরু হয়েছে। এ ক্ষেতে আপনি চাইলে মাত্র ৫০,০০০ হাজার টাকা বিনিয়োগ করে এর পাইকারি ব্যবসা শুরু করতে পারেন। আপনি চাইলে সরাসরি নিজের কারখানায় বা অন্য কারখানা থেকে ক্র‍য় করে এনে অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা আইডিয়া কে কাজে লাগিয়ে শুরু করতে পারেন। 

আরো জানতেঃ ৫০ হাজার টাকায় ব্যবসা

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা মুদি মালামাল বিক্রয়

যদি ২০২৩ সালে এসে মুদি মালামালের কথা চিন্তা করি তাইলে অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা আইডিয়া কে অনেক সহজ করে দিবে। বর্তমান সময়ে মুদি মালামালের ডিলারশিপ নিয়ে ব্যবসা করা খুবই সহজ। অথবা আপনি চাইলে নিজে একটি দোকান বা গোডাউন নিয়ে উৎপাদন কারীর কাছ থেকে মালামাল ক্রয় করে এনে পাইকারি ব্যবসা করতে পারেন। সাধারণ দেখা যায় যে খুচরা বিক্রেতারা এসব পণ্য পাইকারি দোকান থেকে কিনে এনে বিক্রি করে। 

মুদি মালামাল বলতে আপনি চাল,ডাল,আটা,ময়দা,সুজি,হলুদ,মরি,চানাচুর বিস্কুট ইত্যাদি কে বুঝায়। এই ধরনের ব্যবসা করতে হলে আপনাকে নূন্যতম এক লক্ষ ১০,০০,০০০ টাকা মতো মুলধন থাকতে হবে। কারন এই ব্যবসায় আপনার অবশ্যই একটি গোডাউন লাগবে যেখানে আপনি আপনার মালামাল গুলো রাখবেন।

আরো জানতেঃ খুচরা পাইকারি ব্যবসা

অল্প পুজিতে পাইকারি স্টেশনারি ব্যবসা 

অন্যসব ধরনের পাইকারি ব্যবসার থেকে অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা বলতে এই ব্যবসাটি একদম উইনিক বিজনেস আইডিয়া। আপনি যদি ভালোভাবে স্টেশনারি পণ্য নিয়ে ব্যবসা করতে পারেন তাইলে স্টেশনারি পাইকারি ব্যবসা হতে পারে আপনার ব্যবসা জীবনের আলাদিনের চেরাগ। আপনি চাইলেই এইখান থেকে প্রতিমাসে অনেক মোটা অংকের টাকা লাভ করতে পারবেন। যত দিন যাবে এর চাহিদা বাড়তেই থাকেব। 

বর্তমান বাংলাদেশের কথা যদি চিন্তা করি তাইলে দেখা যাবে অলিতে গলিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এইসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতিনিয়ত এসব স্টেশনারি পণ্যের চাহিদা বাড়তেইছে। যেমন প্রতিনিয়ত কাগজ,কলম,রাবার,রুলার,চক,পিন,ইত্যাদির প্রয়োজন হয়।

তবে এই ব্যবসার অনেক সুবিধাও আছে। এর মধ্যে এই ব্যবসা করতে গেলে খুব বেশি মুলধনের প্রয়োজন হয় না। তাইলে আপনি যদি ইউনিক পাইকারী ব্যবসা নিয়ে চিন্তায় থাকেন কিভাবে কি শুরু করবেন তাইলে এই ব্যবসাটি হতে পারে আপনার জন্য সেরা। বিভিন্ন কোম্পানির কাছ থেকে পণ্য ক্রয় করে আপনি ছোট বিক্রেতার দের কাছে পাইকারি দামে বিক্রি করতে পারবেন। এবং সেখান থেকে আপনি আপনার টার্গেট অনুযায়ী ভালো আয়ও করতে পারবেন।

আরো জানতেঃ পাইকারি ব্যবসার নাম

অল্প পুজিতে পাইকারি  বাচ্চাদের খেলনার ব্যবসা

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা আইডিয়া যদি আপনি খুজে থাকেন তাইলে বাচ্চাদের খেলনার ব্যবসা দিয়ে শুরু করতে পারেন। তবে এই ব্যবসা গ্রামের তুলনায় শহরে করলে খুব অল্প সময়ে ভালো লাভবান হবেন। বাচ্চাদের খেলনার চাহিদা এখন অনেক বেশি এবংএটি একটি উইনিক ব্যবসা আইডিয়া। এই ব্যবসা করতে আপনার লক্ষ টাকাও ইনভেস্ট করতে হবে না মাত্র ৫০,০০০ টাকা ইনভেস্ট করে শুরু করতে পারবেন। হয়তো ভাবতে পারেন ৫০,০০০টাকা দিয়ে কতটুকু হবে তাইলে বলতে পারি ৫০,০০০টাকা দিয়ে অনেক ভালো মানের ব্যবসায় করতে পারবেন। 

আপনি চাইলে সরাসরি চাইনা থেকে বা বংলাদেশের বিভিন্ন খেলনা উৎপাদন কারী প্রতিষ্ঠান থেকেও ক্রয় করে শুরু করতে পারবেন। আবার যারা চাইনা থেকে যারা সরাসরি পণ্য নিয়ে আসে আপনি তাদের কাছ থেকে সল্প মুল্যে ক্রয় করতে পারবেন। এর পর আপনি পাইকারি দামে ছোট বা খুচরা বিক্রেতাদের কাছেবতা বিক্রি করে ভালো লাভ করতে পারবেন।

আরো জানতেঃ স্টেশনারি পাইকারি ব্যবসা

অল্প পুজিতে কসমেটিক্স পাইকারি ব্যবসা  

বর্তমান বাংলাদেশের কথা যদি বিবেচনা করি তাইলে কসমেটিক মালামালের ব্যবসা সময় উপযুক্ত একটি লাভ জনক ব্যবসা। তবে এই ব্যবসার যেমন চাহিদা আছে তেমনি এই ব্যবসা শুরু করতে হলে আপনাকে কম পক্ষে ১ থেকে ২ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করার সামর্থ্য থাকতে হবে। আপনি চাইলে এসব পন্য ঢাকা নিউমার্কেট, চকবাজার বা বিভিন্ন কোম্পানির কাছ থেকে ক্রয় করে শুরু করতে পারবেন। কসমেটিকস পন্য যেমন বিক্রি হয় ঠিক তেমনি এই পণ্য্র মুনাফাও অনেক বেশি। 

আপনি এসব কসমেটিকস ক্র‍য় করে এনে বাজারের বা মার্কেটের খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করতে পারবেন। যেহেতু এই পণ্যর চাহিদা আকাশ চুম্বি তাই বসে না থেজে আপনিও ওই সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে আপনার ব্যবসা জীবন শুরু করতে পারেন।

আরো জানতেঃ বিনা টাকায় ব্যবসা

পাইকারি ব্যবসা  শুরু করতে কি পরিমান টাকা প্রয়োজন ?

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা আইডিয়া এর কথা যদি বলেন তাইলে অল্প পুজিতে এইসব ব্যবসায় খুব বেশি একটা সুবিধা করতে পারবেন না। কারন এসব ব্যবসায় লাভবান হতে গেলে উৎপাদন কারী প্রতিষ্ঠান থেকে অল্প দাম দিয়ে হলেও অনেক বেশি পরিমান পণ্য ক্রয় করতে হয়। তাই আপনি যদি একটি পাইকারী ব্যবসা শুরু করতে চান তাইলে নূন্যতম আপনাকে ৫০,০০০ হাজার থেকে ১,০০,০০০টাকা মুলধন ভা ইনভেস্টমেন্ট থাকতে হবে।

আর যদি উৎপাদন কারী প্রতিষ্ঠান আপনার পরিচিত থাকেতাইলে আপনি তাদের থেকে পণ্য ক্রয় করে এনে বিক্রি করে পরে টাকা পরিশোধ করে দিতে পারেন। তবে এই খানে আরো একটি সুবিধা আছে আপনি যদি তাদের থেকে নিয়মিত মাল ক্র‍য় করেন তাইলে অর্ধেক বাকি দিয়ে নিয়ে আসতে পারবেন। যা পরে পণ্য বিক্রয় করে পরিশোধ করতে পারবেন। 

তবে এইটা নিশ্চিত যে আপনার যদি ৫০,০০০ থেকে ১,০০,০০০ টাকা থেকে থাকে তাইলে এই ব্যবসায় আপনি অনেক বেশি সুবিধা পাশাপাশি নিজের ব্যবসায়ী জীবন সফল করতে পারবেন।

আরো জানতেঃ পাাইকারি ব্যবসার আইডিয়া

পাইকারি ব্যবসায় লাভবান হওয়ার উপায়

প্রতিনিয়ত আমরা শুনে থাকি পরিশ্রম সৌভাগ্যের প্রূসুতি। তাই আপনি যে খানেই যান যে ক্ষেত্রেই জান না কেন আপনাকে পরিশ্রম করতেই হবে। পরিশ্রম ছাড়া কোন ব্যবসায় সফল হতে পারবেন না। তেমনি ভাবে আপনি যদি অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা করে সফল হতে চান তাইলে আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে। সেই সাথে নিজের সততা,বিচক্ষণতা দিয়ে আপনার ব্যবসাকে দেখে রাখতে হবে।

ব্যবসা জীবনে সফল হতে চাইলে অবশ্যই আপনার সততা থাকতে হবে।  কারন ব্যবসা সফলের মুলমন্ত্র হিসাবে সততাই একমাত্র হাতিয়ার। আপনি যদি আপনার ব্যবসা জীবনে সততাকে ধরে রাখেতে পারেন তাইলে দেরিতে হলেও আপনি ব্যবসায় সফল হবেন। আর যদি পাইকারি ব্যবসা হয় তাইলে অবশ্যই আপনি সব সময়েই ভালো মালামাল গুদামজাত করবেন যাতে গ্রাহক প্রতারিত না হয়। 

আবার আপনি সবার থেকে যদি চড়া দামে বিক্রি করেন তাইলে হবে না। আপনাকে অবশ্যই বাকি পাইকারি ব্যবসায়ীদের থেকে কম দামে পণ্য বিক্রি করতে হবে। তবে অবশ্যই ন্যায্যতা বজায় রেখে চলতে হবে। মনে করেন একটি পণ্য আপনি ২০০টাকা দিয়ে ক্রয় করে ৩০০ টাকা বিক্রি করেন তাইলে হবে না।  এই খানে আপনি ২২০ টাকায় বিক্রি করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে খুচরা বিক্রেতা আপনার থেকে ক্রয় করে নিয়ে নিজেও লাভ করতে পারে তাইলে ২ জনেরই ভালো ব্যবসা হবে এবং লাভবান হবেন।

আরো জানতেঃ বিনা টাকায় ব্যবসা

আপনাদের কিছু প্রশ্ন!

  • পাইকারি ব্যবসায় সাকসেস হওয়ার উপায়?
  • পাইকারি ব্যবসা সফল হওয়ার জন্য প্রথমে আপনাকে ভালো মালামাল নির্বাচন করতে হবে! এরপরে সঠিক স্থান নির্বাচন করে একটি গোডাউন তৈরি করুন। এবং সততার সাথে নায্য দামে মালামাল গুলো বিক্রয় করলে খুবদ্রুত এই ব্যবসায় সফল হবেন।
  • পাইকারি ব্যবসা কাকে বলে ?
  • উৎপাদনকারীদের কাছ থেকে অল্প দামে অনেক মালামাল ক্রয় করে এনে খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করাকে পাইকারি ব্যবসা বলা হয়।

1 thought on “অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা শুরু করার ১০ টি সহজ উপায়”

Leave a Comment